প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের চূড়ান্ত ফল ( Primary Result) প্রাইমারী রেজাল্ট ২০১৯

2104
Primary Final Result

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রাজস্বখাতভুক্ত সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮ এর চূড়ান্ত ফলাফল ডিসেম্বর মাসে প্রকাশ করা হবে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর এই তথ্য জানিয়েছেন। পরীক্ষার্থীরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে ( Primary viva result) প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ভাইভা পরীক্ষার ফলাফল কবে দিবে।

গতবছর, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রাজস্বখাতভুক্ত সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৪ এর চূড়ান্ত ফলাফল সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাতে প্রকাশ করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। এতে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৯ হাজার ৭৬৭ জন। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা রবীন্দ্রনাথ রায় সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮) এ তথ্য জানান।

Primary Final Result 2019

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. এ এফ এম মনজুর কাদির দৈনিক শিক্ষাকে বলেন, ‘শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল তৈরির কাজ চলছে। আগামী ২২ থেকে ২৬ ডিসেম্বরের মধ্যে আমরা এই ফল প্রকাশ করতে পারব বলে আশা করছি। এ ছাড়া পদের সংখ্যাও বাড়ানো হয়েছে। এবার প্রায় ১৮ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে।’

প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগের রেজাল্ট আজ রাত ১১ টার পর।

তিনি জানান, নির্বাচিত প্রার্থীদের রোল নম্বরের তালিকা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট (www.mopme.gov.bd) এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের ওয়েবসাইটে (www.dpe.gov.bd) পাওয়া যাবে।

Primary Teacher Viva Result 2019

চলতি বছরের ২০ এপ্রিল শুরু হয়ে চার ধাপে পার্বত্য জেলা বাদে ৬১ জেলায় শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ১৩ লাখ আবেদনকারীর মধ্যে ছয় লাখ ১৬ হাজার ৬৪ জন পরীক্ষায় অংশ নেন।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল দেখতে http://www.dpe.gov.bd/site/view/notices এই লিংকে ক্লিক করতে হবে। এরপর পিডিএফ ফরমেটে ফলাফল প্রকাশ সম্পর্কিত ফাইল দেখতে পাবেন। উক্ত ফাইলটি ডাউনলোড করে শিক্ষক নিয়োগের ফলাফল দেখতে পারবেন।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘সহকারী শিক্ষক’ নিয়োগ পরীক্ষায় অনলাইনে রেকর্ড সংখ্যক আবেদন জমা পড়েছে। এবার সারা দেশে ২৪ লাখ ১ হাজার ৫৯৭ প্রার্থী আবেদন করেছেন। সবচেয়ে বেশি আবেদন জমা পড়েছে চট্টগ্রামে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১২ হাজার শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। সে লক্ষ্যে গত ১ আগস্ট থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন কার্যক্রম শেষ হয়। সারা দেশে মোট ২৪ লাখ ১ হাজার ৫৯৭ আবেদন পড়ে। অক্টোবরে লিখিত পরীক্ষার আয়োজনের কথা জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এর আগে সর্বোচ্চ ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগে প্রায় ১২ লাখ আবেদন পড়ে। সম্প্রতি এ পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল প্রকাশ হয়েছে।

সহকারী শিক্ষক নিয়োগ রেজাল্ট

জানা গেছে, সারা দেশে ১২ হাজার আসনের বিপরীতে প্রতি আসনে ২০০ জনের বেশি চাকরি প্রত্যাশীরা পরীক্ষা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করবেন। চলতি বছরের ১৯ থেকে ২৬ অক্টোবরের মধ্যে লিখিত পরীক্ষা আয়োজনে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। ডিসেম্বরের মধ্যে মৌখিক পরীক্ষার শেষ হতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিপিই’র মহাপরিচালক আবু হেনা মোস্তফা কামাল বলেন, সহকারী শিক্ষক নিয়োগে এবার সর্বোচ্চ আবেদন এসেছে। এটি একটি ইতিবাচক বিষয় হিসেবে গণ্য করা হবে। বেশি আবেদন এলে কঠিন প্রতিযোগিতার মাধ্যমে মেধাবী শিক্ষক নেয়া সম্ভব হবে।

প্রার্থীরা http://dpe.teletalk.com.bd ওয়েবসাইট থেকে প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে পারবেন। ওএমআর শিট পূরণের নির্দেশাবলী এবং পরীক্ষা সংক্রান্ত অন্যান্য তথ্য ওয়েবসাইটে (www.dpe.gov.bd) পাওয়া যাবে।