কাজুবাদাম কি?

আমাদের দেশে বর্তমান সময়ে বিভিন্ন ধরনের খাবার দাবার তৈরি করে তার স্বাধ ও ঘ্রান বাড়াতে কাজুবাদাম এর সমাহার দেখা যায়। যে কোন বিয়ে বাড়ি থেকে শুরু করে অনেক ধরনের অনুষ্ঠানের বিভিন্ন ধরনের খাবারে কাজুবাদাম ব্যবহার করা হয়। শুধু যে ঝাল খাবার কাজুবাদাম ব্যবহার করা হয় তাই নয়। এমনকি মিষ্টি খাওবারে ও কাজুবাদাম এর ব্যবহার আমাদের বাংলাদেশে প্রচুর পরিমাণে প্রচলিত।

কাজুবাদাম গুলো দেয়ার কারণে আমাদের খাবারে আলাদা স্বাদ যুক্ত হয়। সেই সাথে কাজু বাদাম দেওয়াতে একটি আলাদা স্বাদ খাবারে অতিরিক্ত মাত্রা যোগ করে থাকে। কাজু বাদাম কিন্তু আমাদের শরীর এবং স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী একটি খাবার। এতে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের পুষ্টি গুণাগুণ সম্পন্ন যা আমাদের শরীরের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

কাজু বাদামের দাম কত?

বর্তমান বাজারে বিভিন্ন ধরনের কাজুবাদাম রয়েছে। প্রত্যেকটি কাজু বাদামের জাত আলাদা আলাদা হওয়ার কারণে কাজুবাদাম এর দাম কম বেশি হয়ে থাকে। এছাড়াও একেক দেশে থেকে কাজুবাদাম গুলো আমদানী করা হয় বলেও এর কারণেও দাম কম বেশি হতে পারে।

তবে নরমাল আমাদের বাজারে যে কাজুবাদাম গুলো সবচেয়ে বেশি দেখা যায় সেগুলোর দাম সর্বনিম্ন ৭৫০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১২৫০ টাকা। এই টাকার মধ্যেই আপনারা যে বাজারে যেসব কাজুবাদাম গুলো দেখা যায় সেগুলো ক্রয় করতে পারবেন। আর যদি আপনি অন্যান্য বেশি পুষ্টি গুণাগুণ সম্পন্ন কোন কাজুবাদাম করতে চান তাহলে ক্ষেত্রে হয়তো দাম কম বেশি হতে পারে।

কাজু বাদামের উপকারিতা সমূহ

কাজুবাদাম গ্রহণ করার ফলে আপনি অনেক ধরনের রোগ জীবাণু থেকে রক্ষা পেতে পারবেন। সেই সাথে কাজুবাদাম এমন কিছু পুষ্টি গুনাগুন রয়েছে যেগুলো ক্যান্সার থেকে মুক্তি দিতে পারে। এমনকি আপনার বিভিন্ন ধরনের ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণ করতে পারে কাজুবাদাম। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের পুষ্টি গুণ থাকার কারণে আপনি অনেক ধরনের রোগ থেকে রক্ষা পেতে পারবেন।

আমাদের অনেকেরই মাথায় বা মস্তিষ্কে যে উপাদানের উপস্থিতির কারণে মস্তিষ্কের সেল ড্যামেজ হয়ে যায়। আর সেই সমস্যা থেকে যদি বাঁচতে চান তাহলে অবশ্যই কাজু বাদাম গ্রহণ করতে পারেন।কেননা কাজুবাদাম গ্রহণ করার ফলে আপনার মস্তিষ্কে সব সময় স্মরণ শক্তি বাড়বে এবং কার্যক্রম সঠিকভাবে কাজ করতে পারবে।

সেইসাথে কাজুবাদাম এর ভিতরে অনেক ভিটামিন-ই থাকার কারণে আপনার মস্তিষ্কের জন্য এই ভিটামিন পুষ্টি গুনাগুন সম্পূর্ণ কাজুবাদাম অনেক উপকার করবে। তাই চাইলে কাজুবাদাম গ্রহণ করতে পারেন যদি আপনার বিভিন্ন ধরনের মস্তিষ্ক জনিত সমস্যা থাকে এর থেকে রেহাই পেতে চান।

কাজুবাদাম শুধুমাত্র বড়রা গ্রহণ করবে তাই নয় চাইলে ছোটদের ও কাজুবাদাম গ্রহণ করা উচিত। কেননা কাজু বাদাম খাওয়ার করার ফলে ছোটদের শরীরের হাড় এর গঠন শক্তিশালী হয়। যদি পারা যায় ছয় মাসের বড় যেকোন বয়সী বাচ্চাদের কে কাজুবাদাম খাওয়ানো যেতে পারে। তবে সেটা খুব সামান্য, অতিরিক্ত কখনোই খাওয়ানো যাবে না।

ছোট বাচ্চাদের কাজুবাদাম খাওয়ানোর ফলে কাজুবাদামের ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস রয়েছে তা শিশুর শরীরের হাড় বিকশিত করতে খুবই উপকার করবে। এছাড়াও আপনি বাজারে এক ধরনের তেল কিনতে পাবেন যেটা কাজু বাদাম থেকে তৈরি করা হয়। শুধুমাত্র ছোট শিশুদের কে এই তেল মালিশ করার ফলে শরীরের হাড় অনেক শক্ত হয়।

কাজুবাদাম খেলে আমাদের চুলের গোড়া মজবুত হয়। এছাড়াও কাজুবাদাম গ্রহণ করার ফলে আমাদের চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধি হয়। কেননা কাজু বাদামে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এবং খনিজ পদার্থ রয়েছে। যেগুলো আমাদের চুলে পুষ্টি যোগায় এবং চুল পড়া কমায়। আপনি জানলে অবাক হবেন যে, বাজারে অনেক ধরনের তেল পাওয়া যায় যা কাজুবাদাম থেকে তৈরি করা হয়েছে।

আর এই তেল গুলো ব্যবহার করার ফলে চুলের বিভিন্ন সমস্যা থেকে সমাধান পাওয়া যায়। তাই আপনি যদি সরাসরি কাজু বাদাম খান তাহলে হয়তো অনেক উপকার পাবেন। আপনার চুলের জীবন ভালো থাকবে সেই সাথে আপনার চুলের গোড়া মজবুত হবে।

আশাকরি কাজুবাদামের বিভিন্ন উপকারিতা সম্পর্কে এখন জানতে পেরেছে। এছাড়াও আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি কাজুবাদাম কি? এখন আপনারা হয়ত খুব ভালো ভাবে কাজু বাদামের দাম এবং কাজুবাদাম এর বিশেষত্ব গুণ সম্পর্কে ভালোভাবে অবগত আছেন। এরপরও যদি কোন কিছু বুঝতে না পারেন।

তাহলে অবশ্যই আমাকে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করে আপনার সমস্যাটির সমাধান করে দেওয়ার চেষ্টা করব। যাতে করে আপনি খুব সহজেই কাজুবাদাম সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য গুলো নির্ভুলভাবে জানতে পারেন। দেখা হবে আবার নতুন কোন আর্টিকেলে নতুন কোন বিষয় নিয়ে ততক্ষণ পর্যন্ত আশা করি সবাই ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন।

জানতে ও জানাতে চাই।