মাহে রমজান মাস আসলে আমাদের বাংলাদেশে বিভিন্ন দেশ থেকে নানান ধরনের খেজুর আসে। এসব খেজুর গুলোর মাধ্যমে সকল ধর্মপ্রাণ মুসলিমেরা রমজান মাসের রোজা রাখার পর ইফতার করে থাকে। বর্তমান সময়ে আমাদের সবচাইতে বেশি যে যেসব দেশ গুলো থেকে খেজুর আসে তার মধ্যে অন্যতম হলো; সৌদি আরব, ইরাক, ইরান, মিশর ও তিউনিসিয়া ইত্যাদি।

তবে যেসব খেজুরগুলো আসে তার মধ্যে সবচাইতে দামি খেজুর হলো আজওয়া খেজুর। আজওয়া খেজুর গুলো দেখতে কালো রঙের হয়ে থাকে। আর এই খেজুরের বিভিন্ন ধরনের পুষ্টি গুনাগুন বেশি থাকায় অন্যান্য খেজুরের থেকে এই আজওয়া খেজুরের দাম বেশি হয়ে থাকে। তো আমাদের মধ্যে অনেকেই জানেন না যে আজওয়া খেজুরের দাম কত?

যারা আজওয়া খেজুরের দাম জানেন না তাদের জন্য মূলত আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি। আশাকরি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়লে এক কেজি আজওয়া খেজুরের দাম কত সেটা ভালোভাবে জানতে এবং বুঝতে পারবেন। তাহলে চলুন জেনে নেয়া যাক এক কেজি আজওয়া খেজুরের দাম কত তা সম্পর্কে।

আজওয়া খেজুরের দাম

বর্তমান সময়ে আমাদের দেশে যেসব খেজুর গুলো পাওয়া যায় তার মধ্যে সবচেয়ে দামি খেজুর হলো আজওয়া খেজুর। আজওয়া খেজুর কে কিন্তু শুধুমাত্র দামি তা বললে ভুল হবে। এছাড়াও আজওয়া খেজুর এর মধ্যে রয়েছে অন্যান্য খেজুর গুলো চেয়ে বেশি পুষ্টি গুণাগুণ।
তাই আজওয়া খেজুর গুলো অন্যান্য খেজুর এর চেয়ে বেশি দাম হয়ে থাকে।

বর্তমান বাজারে আমাদের দেশে এক কেজি আজওয়া খেজুরের দাম ৭৫০ টাকা থেকে ২,৫০০ টাকা হয়ে থাকে। বিভিন্ন দেশের আলাদা আলাদা আজওয়া খেজুরের থাকার কারণে এই দাম কম বেশি হয়ে থাকে। তাছাড়া আজওয়া খেজুর কত গুলো ভালো থাকে বা অধিক পরিপুষ্ট থাকে সেগুলোর দাম বেশি হয়। আবার অন্যান্য খেজুর গুলো একটু কম ভালো থাকে এবং পুষ্টি গুণ ও কম থাকার কারণে একটু দাম কম রাখা হয়।

তাছাড়া বিভিন্ন ধরনের অন্যান্য খেজুর কে আজওয়া খেজুর বলে চালিয়ে দেয়া হয়। যে কারণে আজওয়া খেজুরের সঠিক নামটি সব সময় বলা যায় না। তবে আজওয়া খেজুরের দাম সবচেয়ে বেশি যে গুলো সে গুলো সব চাইতে ভাল হয়ে থাকে। তবে বাজার গবেষকদের মতে আজওয়া খেজুর যেগুলো সৌদি আরব থেকে আসে সেগুলো দাম সব চাইতে বেশি হয়ে থাকে।

আজওয়া খেজুর খাওয়ার উপকারিতা

আজওয়া খেজুর গুলো খেতে খুবই সুস্বাদু হয়। এর কারণ হিসেবে বলা যায় আজওয়া খেজুর গুলো অনেক নরম এবং মজাদার হয়ে থাকে। এছাড়া আজওয়া খেজুরের একটি আলাদা সৌন্দর্য রয়েছে যেটা আপনাকে আজওয়া খেজুর ক্রয় করার জন্য বা খাওয়ার জন্য আকৃষ্ট করতে পারে। তাছাড়া আজওয়া খেজুরের বিভিন্ন ধরনের পুষ্টি ও গুনাগুণ ভরপুর তো আছেই।

বিভিন্ন গবেষণা মতে জানা যায় যে আজওয়া খেজুরের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ, ভিটামিনসি, ভিটামিন কে, কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, ক্যালরি, বি ৬, আয়রন ও সোডিয়াম সহ বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন ও পুষ্টি গুনাগুন সম্পূর্ণ থাকে। যা আমাদের শরীরে বিভিন্ন ধরনের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। এছাড়াও আজওয়া খেজুরের বিভিন্ন পুষ্টি গুনাগুন আমাদের বিভিন্ন ধরনের রোগ প্রতিরোধক হিসেবেও কাজ করে।

এছাড়াও আজওয়া খেজুর রয়েছে প্রচুর পরিমাণে নিয়ামিন, থিয়ামিন ও রিবোফ্লাবিন এর মতো বিভিন্ন প্রয়োজনীয় এবং গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। যেগুলো আমাদের শরীর এবং চোখের জন্য খুবই প্রয়োজন এবং দরকারি। বিভিন্ন চিকিৎসক গবেষকদের মতে জানা যায় যে, আজওয়া খেজুরের মধ্যে ক্যারোটিন থাকে।

যা আমাদের চোখ কে সবসময় ভালো রাখতে সাহায্য করে। এরকম আরো অনেক ধরনের বিভিন্ন পুষ্টি গুনাগুন ভরপুর হলো আজওয়া খেজুর। যেগুলো আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। এছাড়াও আর ও বিভিন্ন ধরনের রোগ জীবাণু থেকে আমাদের কে রক্ষা করতে সাহায্য করে।

আজওয়া খেজুরের দাম ও আজওয়া খেজুর খাওয়ার উপকারিতা সমূহ সম্পর্কে আশা করি আপনারা এখন ভালো ভাবে জানতে এবং বুঝতে পারলেন। এখন আপনারা চাইলে আজওয়া খেজুর ক্রয় করতে পারবেন। যেহেতু আজওয়া খেজুর কত টাকা কেজি এগুলো জানতে পারছেন।

এরপরে ও যদি আপনি আজওয়া খেজুর এর দাম এবং আজওয়া খেজুর খাওয়ার উপকারিতা সমূহ সম্পর্কে ভালো ভাবে জানতে অথবা বুঝতে না পারেন। তাহলে এক্ষেত্রে আমাদের কে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে পারেন।

আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করে আপনার সমস্যাটির সমাধান করে দেওয়ার চেষ্টা করব। যাতে করে আপনি আজওয়া খেজুরের দাম ও আজওয়া খেজুর খাওয়ার উপকারিতা সমূহ সম্পর্কে ভালো ভাবে জানতে এবং বুঝতে পারেন। তো বন্ধুরা আজ এ পর্যন্তই ছিল দেখা হবে আবার নতুন কোন আর্টিকেলে নতুন কোন বিষয় নিয়ে, ততক্ষণ পর্যন্ত আশা করি সবাই ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন।

জানতে ও জানাতে চাই।