বিসিএস

৩৭তম বিসিএসের অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে নন ক্যাডার নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু করেছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (বিপিএসসি)। পিএসসি সূত্রে জানা গেছে, প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির বেশ কিছু নন ক্যাডার শূন্য পদের চাহিদা তাদের কাছে এসেছে।

৩৭তম বিসিএসে ৩ হাজার ৪৫৪ জনকে নন ক্যাডারে অপেক্ষমাণ রাখা হয়েছে। পদ পাওয়া সাপেক্ষে তাঁদের নিয়োগ দেওয়া হবে বলে পিএসসি সূত্র জানিয়েছে।

৩৭তম বিসিএসের অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে নন ক্যাডারে নিয়োগ বিষয়ে জানতে চাইলে পিএসসির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক বলেন, তাঁরা বেশ কিছু প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির (নন ক্যাডার) শূন্য পদের তালিকা পেয়েছেন। তালিকা অনুসারে প্রথম শ্রেণির পদের চাহিদা প্রায় ৭০০। আর দ্বিতীয় শ্রেণির পদের চাহিদা প্রায় ৩০০।

এ ছাড়া প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষকের পদ আছে প্রায় আড়াই হাজার।এ বিষয়ে পিএসসির চেয়ারম্যান বলেন, তাঁরা যে চাহিদা পেয়েছেন, সেখানে প্রতিটি পদের বিপরীতে শর্ত আছে। শর্ত মিলে গেলেই নিয়োগ দেওয়া সম্ভব হবে। প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষক পদে চাইলেই সবাইকে নিয়োগ দেওয়া সম্ভব নয়। বিভিন্ন শর্ত মিলে গেলে নিয়োগ দেওয়া যাবে।

মোহাম্মদ সাদিক বলেন, অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে সর্বোচ্চ সংখ্যক প্রার্থী নিয়োগ দিতে তাঁরা চেষ্টা করেন। শর্ত না মিললে নিয়োগ দেওয়া সম্ভব হয় না। যেমন, কোনো পদের জন্য বিজ্ঞান থেকে পাস করা প্রার্থী দরকার। সেখানে বিজ্ঞানের প্রার্থী না পেলে সমাজ বিজ্ঞানের প্রার্থীকে চাকরি দেওয়া সম্ভব হয় না। এভাবে বেশ কিছু প্রার্থী বাদ পড়েন।

৩৭তম বিসিএসের বিজ্ঞাপনে ১ হাজার ২২৬ জনের কথা থাকলেও ১ হাজার ৩১৪ জনকে ক্যাডার হিসেবে নিয়োগের সুপারিশ করেছে পিএসসি। এতে সাধারণ ক্যাডার হয়েছেন ৪৬৫ জন, সহকারী সার্জন হয়েছেন ২৭২ জন, ডেন্টাল সার্জন হয়েছেন ৫১ জন। অন্যান্য কারিগরিতে ক্যাডার হয়েছেন ৩১৬ জন। শিক্ষায় ক্যাডার হয়েছেন ২১০ জন।

এদিকে ৩৮তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা শেষ হয়েছে। এখন সেই পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পালা। গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর ৩৮তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষা হওয়ার প্রায় দুই মাসের মধ্যে ফল দেওয়া হয়।

পিএসসি সূত্র জানায়, ৩৮তম বিসিএসের মাধ্যমে জনপ্রশাসনে ২ হাজার ২৪ জন ক্যাডার নিয়োগ করা হবে। প্রশাসন ক্যাডারে ৩০০, পুলিশ ক্যাডারে ১০০ পদসহ ৩৮ তম বিসিএসে সাধারণ ক্যাডারে মোট ৫২০ টি, কারিগরি ও পেশাগত ক্যাডারে ৫৪৯ টি, শিক্ষা ক্যাডারে ৯৫৫টি পদ থাকছে।

৩৯তম বিশেষ বিসিএস আয়োজন করা হয় চিকিৎসকদের জন্য। গত বছরের ৬ সেপ্টেম্বর ৩৯তম বিশেষ বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়। বর্তমানে এই বিসিএসের মৌখিক পরীক্ষা নেওয়ার কার্যক্রম চলছে। মৌখিক পরীক্ষা শেষ হলে চূড়ান্ত ফলাফল দেবে পিএসসি।

পিএসসি সূত্র জানায়, ৩৯তম বিশেষ বিসিএসের মাধ্যমে ৪ হাজার ৫৪২ জন সহকারী সার্জন ও ২৫০ জন সহকারী ডেন্টাল সার্জন নেওয়া হবে।

৪০তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা আগামী এপ্রিলে হতে পারে। এতে আবেদন করেছেন ৪ লাখ ১২ হাজার ৫৩২ জন প্রার্থী। এতে আবেদনের রেকর্ড তৈরি হয়েছে। কীভাবে এত প্রার্থীর পরীক্ষা নেওয়া যায়, সে জন্য এখন পরিকল্পনা করছে পিএসসি।

I hope you are enjoying this article. Thanks for visiting this website.