স্কুল ভর্তি নীতিমালার খসড়া চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়

21
শিক্ষা সংবাদ

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ২০১৯ খ্রিস্টাব্দে বেসরকারি স্কুল অথবা স্কুল অ্যান্ড কলেজে মাধ্যমিক, নিম্ন মাধ্যমিক ও সংযুক্ত প্রাথমিক স্তরে শিক্ষার্থী ভর্তি নীতিমালা-১৮ এর খসড়া চেয়েছ শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ থেকে শিক্ষা অধিদপ্তরে পাঠানো এক চিঠিতে ভর্তি নীতিমালার খসড়া চাওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) মন্ত্রণালয় সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের চিঠিতে বলা হয়, ২০১৯ খ্রিস্টাব্দে বেসরকারি স্কুল এবং স্কুল এন্ড কলেজগুলোতে মাধ্যমিক, নিম্ন মাধ্যমিক ও সংযুক্ত প্রাথমিক স্তরে শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য ‘বেসরকারি স্কুল ও স্কুল অ্যান্ড কলেজে মাধ্যমিক, নিম্ন মাধ্যমিক ও সংযুক্ত প্রাথমিক স্তরে শিক্ষার্থী ভর্তির নীতিমালা ২০১৮’ প্রণয়ন করা প্রয়োজন।

অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে ৩ কর্মদিবসের মধ্যে বেসরকারি স্কুল / স্কুল অ্যান্ড কলেজে মাধ্যমিক, নিম্ন মাধ্যমিক ও সংযুক্ত প্রাথমিক স্তরে শিক্ষার্থী ভর্তির নীতিমালা ২০১৮’ এর খসড়া শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে বলা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের শিক্ষাপঞ্জি অনুযায়ী স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষা ১৮ ডিসেম্বর এবং কলেজের পরীক্ষা ৩ ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করার নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু নির্বাচনের কারণে এ পরীক্ষা আগেই নেয়া শুরু করবে স্কুলগুলো। শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এ ধরনের চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে।

সূত্র জানায়, অধিদপ্তর থেকে ২০১৯ শিক্ষাবর্ষে বেসরকারি স্কুল অথবা স্কুল অ্যান্ড কলেজে মাধ্যমিক, নিম্ন মাধ্যমিক ও সংযুক্ত প্রাথমিক স্তরে শিক্ষার্থী ভর্তি নীতিমালা-১৮ এর খসড়া নীতিমালা মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর পর সেটি চূড়ান্ত করা হবে।

তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯ শিক্ষাবর্ষে গতবারের মতো এবারও মহানগরের ৩৫টি সরকারি বিদ্যালয়কে ‘এ’ ‘বি’ ও ‘সি’ এই তিনটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হবে। ‘এ’ ক্যাটাগরিতে ১৩টি, ‘বি’ ক্যাটাগরিতে ১২টি ও ‘সি’ ক্যাটাগরিতে ১২টি বিদ্যালয় রয়েছে।

জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষা শুরু হবে ১ নভেম্বর, শেষ হবে ১৫ নভেম্বর। আর প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষা ১৮ নভেম্বর থেকে শুরু হয়ে শেষ হবে ২৬ নভেম্বর।

২০১৮ শিক্ষাবর্ষের জন্য ঢাকা মহানগরের সরকারি মাধ্যমিক স্কুলে পহেলা ডিসেম্বর থেকে আবেদন শুরু হয়। চলে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত। প্রথম শ্রেণির ভর্তি লটারি ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। ২য় থেকে ৮ম শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষা চলে ১৯ থেকে ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। ৩০ ডিসেম্বর ফলাফল প্রকাশ করা হয়। কিন্তু ২০১৯ শিক্ষাবর্ষে এসব কার্যক্রম ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করা হবে। এ কারণে নভেম্বরের মধ্যেই নীতিমালা চূড়ান্ত করা হবে।এরপর তা ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে। ভর্তি বিজ্ঞপ্তিও দেয়া হবে নভেম্বরের মধ্যে।