‘লাভেলো মিসওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’র প্রতিযোগী কে এই জান্নাতুল নাঈম?

18

জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল। বন্ধুরা তাকে ‘মাফিয়া গার্ল’ বলে ডাকেন। চট্টগ্রামের একটি সাধারণ কৃষক পরিবারে জন্মগ্রহণকারী এভ্রিল ৫ ফুট ৮ ইঞ্চি উচ্চতার অধিকারী। মোটরসাইকেল নিয়ে বিভিন্ন নৈপুণ্য দেখাতে পারদর্শী তিনি। এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে এভ্রিলের নৈপুণ্য প্রদর্শনী, বাইক চালানোর ছবি ও ভিডিও। ৯০ হাজার ফেসবুক অনুসারী রয়েছে তার। তবে এসব কিছু ছাড়িয়ে তিনি বাংলাদেশের হাইস্পিড লেডি বাইক রাইডার হিসেবেও পরিচিতি পেয়েছেন। আর সর্বশেষ তিনি নাম লিখিয়েছেন ‘লাভেলো মিসওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতায়। তার বাড়ি চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার ৫নং বরমা ইউনিয়ন পরিষদর ৬ নম্বর ওয়ার্ডে। বাবার নাম তাহের মিয়। দুই ভাই দুই বোন।

Jannatul nayeem

তবে এরই মধ্যে জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল’কে নিয়ে চলছে নানা গুঞ্জন। নিজের পরিচয়- বৈবাহিক অবস্থা গোপন করে মিডিয়াতে এসেছেন বলে অভিযোগ করেছেন তার বেশ কয়েকজন নিকটাত্মীয়। আর এভাবেই পরিচয় গোপন করে পৌঁছে গেছেন সুন্দরী প্রতিযোগীতায়। ঢাকায় নিজেদের বাড়ি-গাড়ি, বাবা থাকেন সিঙ্গাপুর, বড় ভাইও বড় ব্যবসায়ী পরিচয় দিলেও অনুসন্ধানে দেখা গেছে তার জন্ম একটি সাধারণ কৃষক পরিবারে। এখনও খুব অভাব-অনাটেন দিন কাটছে তাদের।

Jannatul avril photo

 জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল

বিয়ের আগেই এভ্রিলের চলাফেরা স্বাভাবিক ছিল না। বিভিন্ন ছেলেবন্ধুর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন তিনি। বিয়ের পর বেশিদিন স্বামীর সংসার করেন নি। কিছুদিন পরই সংসারের বন্ধন ছিন্ন করে চলে আসেন ঢাকায়। মিডিয়ায় প্রতিষ্ঠিত হওয়ার জন্য গড়ে তোলেন নিজের নেটওয়ার্ক। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের একটি প্রতিষ্ঠিত কোম্পানীর প্রোমোটর হিসেবে নিয়োগ পান।

এদিকে, জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল’কে তার এলাকার অনেকেই তাকে প্রতারক হিসেবে অভিহিত করেছেন। শুধু এলাকারই নয়, এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও তার বাবা স্বয়ং অভিযোগ করেছেন।

 Jannatul nayeem avril photo

৫নং বরমা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম জানান, তার নাম জান্নাতুল নাঈম। এলাকায় তার বিয়ে হয়েছিল। স্বামীর নাম মনজুর আলম। সে বাজারে কাপড়ের ব্যবসা করে। তবে সে সংসার বেশিদিন টেকেনি। শুনেছিলাম একবার চট্টগ্রামের একটি হোটেল রেড করার পর তাকে আটক করা হয়েছিলো। ডিভোর্সের পর আর তার কোনো খোঁজ-খবর আমি জানিনা।

জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল’র বাবা তাহের মিয়া জানিয়েছেন, আমি সিঙ্গাপুরও থাকি না, বড় ব্যবসায়ীও না। আমার সাধারণ একজন মানুষ। আর তাকে আমি মেয়ে বলে এখন স্বীকারও করি না। তার ভাল বা মন্দ কোনো কাজের দায়ভার আমি কোনোদিনই নেব না।