পরিবহন ধর্মঘট – চবিতে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারেনি ১০ হাজার শিক্ষার্থী

11
শিক্ষা সংবাদ

সারাদেশে পরিবহন ধর্মঘট ও সকাল থেকে থেমেথেমে বৃষ্টির কারণে চরম দুর্ভোগে পড়েছে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আগত ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। গতকাল সোমবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থীরা এই দুর্ভোগে পড়ে।

এছাড়াও পরিবহন ধর্মঘটের কারণে এই ইউনিটে ১০ হাজার ৮শত ৪৩ জন শিক্ষার্থী অনুপস্থিত বলে জানা যায়। অনুপস্থিতির বিষয়ে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় কো-অর্ডিনেটর ও জীব বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড.মো. মাহাবুবুর রহমান বলেন, সারাদেশে পরিবহন ধর্মঘটের কারণে শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে আসতে পারে নাই। যার কারণে এত বেশি পরিমাণ শিক্ষার্থী অনুপস্থিত ।

অন্যদিকে, পরিবহন ধর্মঘটের সময় বাস চালানোর অভিযোগে সকাল সাড়ে ৮ টায় নগরীর বহদ্দারহাট টার্মিনাল এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকবহনকারী একটি বাসে হামলা চালিয়ে চালককে বেধড়ক মারধর করেছে পরিবহন শ্রমিকরা ।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসটি নগরীর চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা থেকে ছেড়ে আসে। বহদ্দারহাট টার্মিনাল এলাকায় এসে পৌঁছালে পরিবহন শ্রমিক ও মালিকদের বাধার মুখে পড়ে। এসময় বাসে অবস্থানরত শিক্ষকদের হেনস্থা ও চালক মো. দুলালকে মুখে মোবিল লাগিয়ে দেয় ও মারধর করে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক ড. রাশেদ-উন- নবী বলেন, আমাদের একটি শিক্ষক বাসে হামলার ঘটনা ঘটেছে। আমরা বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করেছি।

এক অভিভাবক আলাউদ্দিন বলেন, সারারাত ছেলেকে নিয়ে ট্রেন জার্নি করে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে এসেছি। তারপর ভোরে এসে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যামপাসে পৌঁছাই। ভয়াবহ পরিবহন দুর্ভোগ ঠেলে এসেছি। শরীর কাহিল। ছেলে কেমন পরীক্ষা দেবে জানি না। এভাবে যখন- তখন পরিবহন ধর্মঘট আহ্বানের কারণে মানুষ সীমাহীন কষ্টের সম্মুখীন।

হাজার হাজার ভর্তি পরীক্ষার্থীর সঙ্গে এসেছেন অভিভাবকরাও। ফারজানা বেগম তেমনি একজন। মেয়েকে নিয়ে চট্টগ্রামে এসেছেন রংপুর থেকে। ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, পরীক্ষার কারণে অবরোধ সীমিত করার ঘোষণা থাকলেও বাস্তবে তার প্রতিফলন নেই। পথে পথে গাড়ির অভাবে চরম নাজেহাল হতে হয়েছে আমাদের।

আজ মঙ্গলবার সকাল দশটায় ‘ সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ‘বি-১” উপ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৩১ তারিখ সকাল ১০টায় এবং দুপুর আড়াইটায় ‘ডি’১ উপ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা হবে।