নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০১৮-১৯

175
ভর্তি তথ্য

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি সার্কুলার ২০১৮-১৯ নোবিপ্রবি ওয়েবসাইট  প্রকাশিত হয়েছে । আজকে আমরা নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা ও সকল তথ্য সম্পর্কে আলোচনা করব।

Noakhali Science and Technology University Admission Notice 2018-19

ভর্তি পরীক্ষা সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ তারিখ ও সময়
আবেদন শুরু : ২৫ আগস্ট, ২০১৮
আবেদনের শেষ সময় : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, রাত ১২.০০ টা পর্যন্ত (ছুটির দিনসহ)
ফল প্রকাশঃ  ৩০ অক্টোবর  ২০১৮
ভর্তি পরীক্ষার তারিখঃ
A ও B ইউনিট-২৬ অক্টোবর ২০১৮
C ও D ইউনিট-২৭ অক্টোবর ২০১৮
E ও F ইউনি-২৮ অক্টোবর ২০১৮

ইউনিট পরিচিতিঃ
নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট ৬টি ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় । A, B, C, D, E এবং F ইউনিটের জন্য আলাদা আলাদাভাবে আবেদন করতে হবে । HSC/সমমান পরীক্ষায় বিজ্ঞান শাখা থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা A, B, C এবং D ইউনিটে, মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণরা E এবং D ইউনিটে, ব্যবসায় শিক্ষা শাখা উত্তীর্ণরা F এবং D ইউনিটে আবেদন করতে পারবে।

ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতাঃ 

A ইউনিট এবং B ইউনিট:
A ও B ইউনিটে আবেদন করার জন্য বিজ্ঞান বিভাগে উত্তীর্ণদের SSC বা সমমান এবং HSC বা সমমান উভয় পরীক্ষায় নূন্যতম GPA ৩.০ সহ মোট GPA ৬.৫ থাকতে হবে।

C ইউনিট :
বিজ্ঞান বিভাগ থেকেSSC বা সমমান এবং HSC বা সমমান উভয় পরীক্ষায় নূন্যতম GPA ৩.০ সহ মোট GPA ৬.৫ এবং থাকতে হবে এবং HSC বা সমমান পরীক্ষায় জীববিজ্ঞান ও গণিত থাকতে হবে ।

D ইউনিট:
D ইউনিট (গ্রুপ পরিবর্তন): বিজ্ঞান/ব্যবসায় শিক্ষা/মানবিক শাখায় উত্তীর্ণদের SSC বা সমমান এবং HSC সমমান উভয় পরীক্ষায় নূন্যতম GPA ৩.০ সহ মােট GPA ৬.০ থাকতে হবে। মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরিসংখ্যান বিভাগে ভর্তির জন্য HSC তে পরিসংখ্যান/গনিত থাকতে হবে।

E ইউনিট:
মানবিক শাখায় উত্তীর্ণদের SSC বা সমমান এবং HSC সমমান উভয় পরীক্ষায় নূন্যতম GPA ৩.০ সহ মােট GPA ৬.০ থাকতে হবে। O/A level শিক্ষার্থীদের যাদের কমপক্ষে ২ টি মানবিক শাখার বিষয় আছে তারা আবেদন করতে পারবে।

F ইউনিট:
ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় উত্তীর্ণদের SSC বা সমমান এবং HSC সমমান উভয় পরীক্ষায় নূন্যতম GPA ৩.০ সহ মােট GPA ৬.০ থাকতে হবে।

ভর্তি পরীক্ষার বিষয় ও নম্বরবন্টনঃ

• A ইউনিটের জন্য: বাংলা, ইংরেজি, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, গণিত এবং জীববিজ্ঞান বিষয়ের উপর প্রত্যেকটি থেকে ২০ টি করে মােট ১২০ টি
• B ইউনিটের জন্য: বাংলা ও ইংরেজি, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, জীববিজ্ঞান এবং গণিত বিষয়ের উপর প্রত্যেকটি থেকে ২০ করে মােট ১২০টি প্রশ্ন থাকবে। ১০০ টি প্রশ্নের উত্তর করতে হবে। পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও জীববিজ্ঞান প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর জন্য বাধ্যতামূলক। বাংলা, ইংরেজি এবং গণিত হতে যে কোনাে দুটির উত্তর দিতে হবে।
• C ইউনিটের জন্য: ‘বাংলা ও ইংরেজি বিষয়ে ২০ টি এবং পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, জীববিজ্ঞান এবং গণিত বিষয়ের উপর প্রত্যেকটি থেকে ২০ করে মােট ১০০ টি প্রশ্নের উত্তর করতে হবে।
• D ইউনিটের জন্য: বাংলা (২৫টি) , ইংরেজি (২৫ টি), সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশ বিষয়াবলী ২৫ টি ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলী ২৫ টি) সর্বমােট ১০০ টি প্রশ্নের উত্তর করতে হবে।
• E ইউনিটের জন্য: বাংলা (২৫টি) , ইংরেজি (২৫ টি), সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশ বিষয়াবলী, আন্তর্জাতিক বিষয়াবলী এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার সিলেবাস থেকে ৫০ টি) সহ সর্বমােট ১০০ টি প্রশ্নের উত্তর করতে হবে।
• F ইউনিটের জন্য; বাংলা (২০টি) , ইংরেজি (২০টি), হিসাব বিজ্ঞান (২০টি), ব্যবসায় নীতি ও প্রয়ােগ (২০টি), মার্কেটিং অথবা ফাইনান্স (২০টি) সহ সর্বমােট ১০০ টি প্রশ্নের উত্তর করতে হবে।

টাকা পাঠানোর পদ্ধতিঃ

ভর্তি পরীক্ষা বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ তথ্যঃ

• বিজ্ঞান শাখা থেকে HSC/সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা সকল ইউনিটে (A, B, C এবং D) আবেদন করতে পারবে। অন্যরা শুধু C ও D ইউনিটে আবেদন করতে পারবে।
• D ইউনিটের বিজ্ঞান, মানবিক এবং ব্যবসায় শিক্ষার জন্য আলাদা মেধা তালিকা তৈরি করা হবে।
• ভর্তি পরীক্ষা: (পরীক্ষা MCQ পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হবে)।
• পরীক্ষার মোট নম্বর ১০০; পরীক্ষার পাশ নম্বর: ৪০
• A, B ও D ইউনিটের পরীক্ষায় প্রত্যেক বিষয়ে ন্যূনতম পাশ নম্বর ০৮।
• মেধা তালিকা তৈরি করা হবে ২০০ নম্বরের ভিত্তিতে।
• মাধ্যমিক/সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত বা হিসাবকৃত, ৪র্থ বিষয়সহ, GPA এর ৮ গুণ।
• উচ্চ মাধ্যমিক/সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত বা হিসাবকৃত, ৪র্থ বিষয়সহ, GPA এর ১২ গুণ, এবং ৩. ভর্তি পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর।
• একাধিক প্রার্থীর মেধাস্কোর সমান হলে পর্যায়ক্রমে ভর্তি পরীক্ষার নম্বর, HSC ও SSC গ্রেড প্রাধান্য পাবে।