ঢাবি ভর্তি পরীক্ষা- ডিভাইস সহায়তা পেতে ৪ লাখ টাকা চুক্তি করে হৃদয়

8
বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য,

শুক্রবার (২৮ সেপ্টেম্বর)  ২০১৮ সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও ক্যাম্পাসের বাইরে মোট ৮৪টি কেন্দ্রে ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‌‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ‘ডিভাইস’ নিয়ে জালিয়াতি করায় দুই শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছে। শুক্রবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১ টা ৪৫ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

আটক দুইজনের মধ্যে একজন হলেন হৃদয় জামান। অন্যজনের পরিচয় জানা যায়নি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ‘ডিভাইস’র মাধ্যমে বাইরে থেকে সহায়তা নিতে জালিয়াত চক্রের সঙ্গে চার লাখ টাকা চুক্তি করেছিল পরীক্ষার্থী হৃদয় জামান।

শুক্রবার (২৮ সেপ্টেম্বর) ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে কলা ভবনের ছয় তলার কেন্দ্র থেকে আটক হওয়ার পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ তথ্য জানায় হৃদয়।

আটক করার সময় হৃদয়ের কাছে একটি ডিভাইস পাওয়া যায়। তারপর তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় বলে বাংলানিউজকে জানায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিস সূত্র। হৃদয় দিনাজপুর জেলার কোতোয়ালি থানার মাধবপুর গ্রামের মনিরুজ্জামানের ছেলে।

হৃদয় জানায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাদমান নামে এক বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীর মাধ্যমে জালিয়াত চক্রের সঙ্গে ওই চুক্তি হয় তার। চুক্তি অনুযায়ী সাদমানই তাকে ডিভাইস সরবরাহ করে। এই সাদমানকে আটকের চেষ্টা চলছে বলেও জানানো হয় প্রক্টর অফিস থেকে।

বিশ্ববিদ্যালযের তথ্য অনুযায়ী, এ বছর ১ হাজার ৭৫০টি আসনের জন্য ভর্তিচ্ছু আবেদনকারীর সংখ্যা ৮১ হাজার ৯৬ জন।