জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইভা সংক্রান্ত সকল প্রশ্নের উত্তর

117
Jahangirnagar University viva

আজ A ইউনিটের পরীক্ষা শেষ হয়েছে। E ইউনিট এর মধ্য দিয়ে জাবির ২০১৮-১৯ সেশনের ভর্তি পরীক্ষা শেষ হচ্ছে। এখন তোমাদের সবচেয়ে কমন প্রশ্ন ভাইভা বিষয়ে আলোচনা করবো। পোষ্ট টা পুরোটা পড়লেই ভাইভা সংক্রান্ত অধিকাংশ কনফিউশন ক্লিয়ার হয়ে যাবে। পোষ্ট টা শুধুমাত্র A, B, C, D, E, F, H এবং I ইউনিটের জন্য প্রযোয্য।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইভা প্রশ্নের উত্তর

১। ভাইভায় কতো মার্কস??

A, B, C, D, E, F, H এবং I ইউনিটে ভাইভায় কোন মার্কস নেই।

২। ভাইভা কারা দিতে পারবে??

বিভিন্ন ইউনিটের আসন সংখ্যার ১০ গুন শিক্ষার্থীর মেধাতালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। শুধু মেধাতালিকার অন্তর্ভুক্ত শিক্ষার্থীরাই ভাইভায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

৩। ভাইভা কবে হবে??

ভর্তি পরীক্ষা শেষ হওয়ার ২-৩ সপ্তাহের মাঝেই সাধারনত ভাইভার নোটিশ দেয়া হয়।

নোটিশ পাবলিশ হলেই আমাদের ফেসবুক পেইজে আপডেট দেয়া হবে।

৪। A, B, D, E, F, H ইউনিটের ভাইভায় কোন মার্কস নাই, তাহলে ভাইভায় হয় টা কি??

শুধুমাত্র তোমাকে যাচাই করা হবে। খাতায় লেখা দুইটা বাক্যের হাতের লেখার সাথে তোমার হাতের লেখা ম্যাচ করা হবে, ছবি দেখে আইডেন্টিফাই করা হবে এবং ফাইন্যালি তোমার সাইন চেক করা হবে।

৫। তার মানে ভাইভায় কাউকে বাদ দেয়া হবে না??

আরে ভাই এইটা তো ভাইভাই না। জাস্ট আইডেন্টিটিফিকেশন। তাই বাদ দেয়ার প্রশ্নই আসে না

৬। চয়েজ ফর্ম কিভাবে জমা দিতে হয়?? কই পাবো??

ভাইভার নোটিশ দেয়ার সাথে সাথে প্রযোয্য ইউনিটসমূহের চয়েজফর্ম আপলোড করা হবে। তোমার কাজ হলো চয়েজ ফর্ম ডাউনলোড করে প্রিন্ট করতে হবে। ফর্ম টা হাতে লিখে পূরন করতে হবে। তারপর ভাইভার সময়ে চয়েজফর্ম টা টিচারদের কাছে জমা দিয়ে দিবা।

৭। যারা ভাইভা দিব, তারা সবাই কি টিকবে??

একদম না। যে কয়টা আসন, সিরিয়ালের শুধু সেই কয়জন টিকবে।

৮। ভাইভার পরে কি আরেকটা লিস্ট দেয়া হবে??

হ্যা। ধরো মেরিট লিস্টের সবাই তো আর ভাইভায় আসবে না। দেখা গেলো কোন ইউনিটে চান্স পাওয়া প্রথম ১০ জন ঢাবিতেই চান্স পেয়ে গেছে। তখন যারা উপস্থিত থাকবে তাদের নিয়ে নতুন একটা মেরিট লিস্ট দেয়া হবে।

তখন ভর্তি পরীক্ষায় ১১ তম পজিশনের স্টুডেন্টের পজিশন হয়ে যাবে ১। ১২ তম পজিশনের স্টুডেন্টের পজিশন হয়ে যাবে ২। এভাবে চলতে থাকবে।

৯। কোটার ভর্তি কার্যক্রম কবে শুরু হবে??

প্রথমত কোটাভুক্ত স্টুডেন্টদের ও সেইম প্রসেসে ভাইভা+চয়েজ ফর্ম জমা দিতে হবে।

সকল ইউনিটের ভাইভা সম্পুর্ন হওয়ার পরে কোটার নোটিশ দিবে। তারপর বাকীটুকু নোটিশ থেকেই বুঝবা।

১০। ভর্তি কার্যক্রম কবে শুরু হবে??

সকল ইউনিটের ভাইভা প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পরেই ভর্তি সংক্রান্ত নোটিশ দেয়া হবে।

১১। ভাইভায় অংশগ্রহণ কি বাধ্যতামূলক??

যাদের ভর্তি হওয়ার সম্ভাবনা আছে(অলরেডি যারা চান্স পেয়ে গেছো)তাদের জন্য বাধ্যতামূলক। মনে রেখো ভাইভায় এটেন্ড না করলে পরবর্তী ভর্তি কার্যক্রমের জন্য বিবেচিত হবা না।

জাহাঙ্গীরনগরের ভাইভা সংক্রান্ত অন্য কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট বক্সে করতে পারো।

✎কি কি প্রশ্ন অবশ্য বর্জনীয়ঃ
লাস্ট ইয়ার কতো নাম্বার পেয়ে কি সাবজেক্ট পেয়েছে
অমুক পজিশন হতে চান্স পাওয়া যাবে কি না
কতো পজিশনের ভেতর থাকলে কোন সাবজেক্ট পাওয়া যায়

সবাইকে শুভকামনা।